ঘন ঘন স্বপ্ন দোষ থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায় - আপনার সেবা

সোমবার, ১৩ এপ্রিল, ২০২০

ঘন ঘন স্বপ্ন দোষ থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায়

তরুণ-যুবকরা সঠিক সময়ে যথাযথ যৌন শিক্ষাটা না পাওয়ার কারণে এই ধরনের বিষয়গুলি নিয়ে বেশ উদ্বিগ্ন থাকে। তার উপর আবার রাস্তাঘাটে কিছু হার্বাল নামধারী ঔষধ বিক্রেতা নানা প্রকার ভয় দেখিয়ে তাদের আরো বিভ্রান্ত করে তোলে।

একটি বিষয় মনে রাখবেন স্বপ্নদোষ হলো প্রতিটি পুরুষের একটা প্রাকৃতিক এবং স্বাভাবিক ব্যাপার। এটা নিয়ে আপনার দুশ্চিন্তা না করলেও চলবে। প্রতিটি পুরুষ তাদের দৈনন্দিন খাবার দাবার থেকে বীর্য পেয়ে থাকে এবং বীর্য থলিতে যখন মাত্রাতিরিক্ত বীর্য জমা হয় তখন বাকিটা স্বপ্নদোষের মাধ্যমে বের হয়ে যায়। এই ঘটনা না ঘটলে আপনার মাথা ভারী মনে হবে এবং অন্যান্য কাজ কর্ম করতে ততটা মনোযোগী হতে পারবেন না। তাই এটি আল্লাহ প্রদত্ত একটি সিস্টেম।

স্বপ্নদোষ যদি সপ্তাহে ১ বারের অধিক এবং মাসে ৫ বারের অধিক হতে থাকে তাহলে এটা রোগের পর্যায়ে পড়ে যাবে। তখন এর যথাযথ চিকিৎসা নিতে হবে। কিন্তু আপনার যদি কোষ্ঠকাঠিন্য থাকে এবং রাতে গুরুপাক খাবার খেয়ে ঘুমান তাহলেও আপনার স্বপ্নদোষ হতে পারে। এক্ষেত্রে রাতে হালকা প্রকৃতির সহজে হজম হয় এই রকম খাবার গ্রহণ করতে হবে। আর কোষ্ঠকাঠিন্য থাকলে তা দূর করতে প্রতিদিন সকালে ইসবগুলের ভুসি পানিতে মিশিয়ে পান করতে পারেন। কোষ্ঠকাঠিন্য ক্রনিক হলে চিকিৎসা নিন, এর থেকে মুক্তি পেয়ে যাবেন ইনশাল্লাহ

মুক্তির উপায়:

১. ঘুমানোর আগে ভালভাবে মূত্রত্যাগ করে ঘুমাবেন।

২. রাতে খাওয়ার পরপরই ঘুমাতে যাবেন না। একটু সময় নিন। অন্ততপক্ষে ১ ঘণ্টা পরে ঘুমাবেন।

৩. উপুড় হয়ে ঘুমাবেন না। এতে দেহের বিভিন্ন অসুবিধার জন্ম দেয়। মেরুদণ্ডের সমস্যার মূল কারণগুলার মধ্যে এটি অন্যতম। তা ছাড়া স্বপ্নদোষেও বেশ বড় ভূমিকা পালন করে এই ভঙ্গি। চেষ্টা করবেন কাত হয়ে ঘুমানোর জন্য, বিশেষ করে ডান কাত হয়ে।

৪. ঘুমাতে যাওয়ার আগে পানি পান করুন, তবে সীমিত পরিমাণে। অতিরিক্ত পানি পান করবেন না।
যদি মনে হয় আপনার অধিক স্বপ্নদোষ হচ্ছে এবং তা রোগের পর্যায়ে পড়ে যাচ্ছে তাহলে ভালো একজন ডাক্তার এর সাথে যোগাযোগ করে প্রপার ট্রিটমেন্ট নিন, কিছু দিনের মধ্যেই ঠিক হয়ে যাবেন আশা করি

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন


আপনিও লেখক হতে পারেন । আপনার আশপাশে ঘটে যাওয়া যেকোনো ঘটনা, ভ্রমণ অভিজ্ঞতা, ক্যাম্পাসের খবর, তথ্যপ্রযুক্তি, বিনোদন, শিল্প-সংস্কৃতি ইত্যাদি বিষয়ে লেখা পাঠান: apanarseba@gmail.com ই-মেইলে।